Home » নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি | নামাজ ভঙ্গের কারণ সমূহ বিস্তারিত
নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি

নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি কি কি বিস্তারিত দেখুন

নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি আমরা অনেকে নামাজ ভঙ্গের ১৯টি কারণ কি কি জানিনা, নামাজ ভঙ্গের কারন গুলো এই আর্টিকেলে দেওয়া হয়েছে। এখান থেকে আপনি নামাজ ভঙ্গের কারণ গুলো জেনে নিতে পারবেন।

আমরা নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি কিন্তু নামাজের মধ্যে কিছু ভুল করলে নামাজ ভঙ্গ হয়ে যায়। আমরা নামাজ পড়ার সময় অনেকে অমনোযোগী হয়ে পড়ি নামাজের মধ্যে বিভিন্ন চিন্তা মাথায় আসে এবং মন দিয়ে নামাজ পড়তে পারি না অনেকে। এবং এমন কিছু কাজ করা যাবে না যাতে আমাদের নামাজ ভঙ্গ হয়ে যায়। নামাজ ভঙ্গের কারণ গুলো নিচে দেওয়া হয়েছে। এই কারণগুলো এগিয়ে চলবেন এবং মন দিয়ে নামাজ পড়বেন। 

আরো জানুন: তিন অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

নামাজ ভঙ্গের কারণ কয়টি?

জানুন নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯ টি। নামাজ ভঙ্গের কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত নিচে দেওয়া হল।

নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি

১/ নামাজ অশুদ্ধ পড়া।

2/ নামাজের ভিতর কথা বলা।

৩/ নামাজ পড়া অবস্থায় কোন লোককে সালাম দেওয়া।

৪/ সালামের উত্তর দেওয়া।

৫/ উহ আহ শব্দ করা।

৬/ বিনা কারণে কাশি দেওয়া।

৭/ আমলে কাছির করা।

৮/ বিপদে বা ব্যথায় শব্দ করে কান্না করা।

৯/ তিন তাছবিহ পরিমান সময় ছতর খুলে থাকা।

১০/ মুকতাদি ব্যথিত অফর লোকের লোকমা দেওয়া।

১১/ সুসংবাদ ও দুঃখ সংবাদের উত্তর দেওয়া।

১২/ নাপাক জায়গায় সিজদা দেওয়া।

১৩/ কেবলার দিক হইতে চিনা ফিরিয়ে নেওয়া।

১৪/ নামাজে কোরআন দেখিয়া পড়া

১৫/ নামাজে কোন কিছু খাওয়া ও পান করা।

১৬/ নামাজের শব্দ করে হাসা।

১৭/ নামাজে হাচির উত্তর দেওয়া।

১৮/ নামাজে দুনিয়াবী কোন কিছু প্রার্থনা করা।

১৯/ ইমামের আগে মুক্তাদি দাঁড়ানো।

নামাজের মাকরূহসমূহ

কিছু কিছু কাজ আছে যা ঘটলে নামাজ ভঙ্গ হয় না। কিন্তু নামাজের সৌন্দর্য অনেকাংশে কমে যায়। এ বিষয়গুলোকে মাকরূহ বা অপছন্দনীয় কাজ বলা হয়। মাকরূহ হলে পুনরায় নামাজ আদায় করা লাগে না। তবে নামাজকে পরিপূর্ণভাবে আদায় করতে হলে এ কাজগুলো থেকে বেঁচে থাকা একান্ত আবশ্যক। নামাজের মাকরূহসমূহ নিচে দেওয়া হয়েছে।

১/ চাদর বা জামা না পড়ে কাঁদ ঝুলিয়ে রাখা।

২/ ময়লা ধুলাবালি লাগার ভয়ে কাপন বা জামা গুটানো।

৩/ আঙ্গুল মুটকানো।

৪/ বস্তা শরীর অথবা দাঁড়ির সাথে খেলা করা।

৫/ এদিক-ওদিক দেখা।

৬/ মাথার চুল উপরিভাগে বাঁধা।

৭/ অলস্যভরে শরীর মোটামুটি করা।

৮/ সিজদার সময় হাত বিছিয়ে দেওয়া।

৯/ আগের কাতারে স্থান থাকতে পিছনের কাতানে দাঁড়ানো।

১০/ অবহেলা করে টুপি না পরে নামাজ পড়া।

১১/ আকাশের দিকে তাকানো।

১২/ ভালো কাপড় থাকা সত্ত্বেও মন্দ কাপড় পড়েন নামাজ পড়া।

১৩/ নামাজের মধ্যে কপালে লাগা ময়লা মুছে ফেলা।

১৪/ সিজদা সময় বিনা কারণে হাঁটুর পূর্বে হাত মাটিতে রাখা।

১৫/ বিনা কারণে আসন পেতে বসা।

১৬/ ফরজ নামাজে এক সূরা বারবার পড়া।

১৭/ কোন মানুষের মুখের দিকে হয়ে নামাজ পড়া।

১৮/ সিজদাতে পিঠ উভয় উরুর সহিত মিলিয়ে দেওয়া।

১৯/ উভয় সিজদার মধ্যে অথবা তাশাহুদ পড়ার সময় কুকুরের ন্যয় বসা।

২০/ দুই হাতে মাটি ঘর দিয়ে উঠা।

২১/ কোন সুন্নত পরিত্যাগ করা।

২২/ বিনা ওজরে নাক মুখ ঢেকে নামাজ পড়া।

শেষ কথাঃ

উপরে নামাজ ভঙ্গের কারণ ১৯টি বিস্তারিত দেওয়া হয়েছে। আশা করি আপনারা নামাজ ভঙ্গের কারণগুলো জানতে পারছেন। এবং নামাজ পড়ার সময় এই ১৯ টি কারণ থেকে বিরত থাকবেন। এবং মন দিয়ে নামাজ পড়বেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 − 8 =

Scroll to Top